পবিত্র মাহে রমজানের সওগাত

Spread the love

মুহাম্মদ খালেদ সাইফুল্লাহ: আহলান সাহলান মাহে রমজান! সবাইকে মাহে রমজানের শুভেচ্ছা। বছর ঘুরে আমাদের মাঝে আবার এলো পবিত্র মাহে রমজান। পবিত্র মাসের পবিত্রতা রক্ষা ও মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের লক্ষে আমাদের কিছু কর্মসূচী নিজ নিজ স্থান থেকে ব্যক্তি জীবনে, সমাজ জীবনে ও রাষ্ট্রীয় জীবনে পালন করা মুসলিম হিসেবে প্রত্যেকের দায়িত্ব। নিম্ন লিখিত কর্মসূচী গুলো রাখতে পারেন আপনার তালিকায়ঃ 
•রমজানের পবিত্রতা রক্ষা করুন।
•নিজে রোজা রাখুন, অন্য কে উৎসাহিত করুন।
•অশ্লীল কার্যকলাপ থেকে দূরা থাকুন।
•বেপর্দেগী বেহায়াপনা বন্ধে সচেষ্ট হউন।
•সবসময় ইবাদতের মধ্যে থাকার চেষ্টা করুন।
•যদি সম্ভব হয় শুদ্ধ ভাবে (পারলে অর্থ বুঝে) কুরআন পড়ুন। 
•কোরআন খতম করুন বা প্রতিদিন যতটুকু পারবেন তেলওয়াত করুন। যদি কোরআন পড়তে না জানেন তবে এই মাসে শিখে ফেলুন।
•সিগেরেটের মত বদ অভ্যস ত্যাগ করার জন্য এ মাসের চেয়ে উত্তম সময় আর নেই। তাই এ মাসে ধমুপান ত্যগের উদ্যোগ নিন।
•ঝগরা ফ্যাসাদ এরিয়ে চলুন। কেউ ঝগড়া করতে এলে বলুন আমি রোজাদার।
•এ মাসে সুদ-ঘুষ , মদ-জুয়া ত্যাগ করে তওবা করুন আর ঐ কাজগুলো আর করবেন না।
•চুগলখুরি অভ্যাস থাকলে তাও ত্যাগ করুন।
•এ মাসকে চরিত্র সংশোধনের মাস হিসেবে কাজে লাগান।
•সকল প্রকার নৈতিক দূর্বলতা দুর করার উদ্যোগ নিন।
• বেশী বেশী দোয়া করুন। পরিবার রাষ্ট সমাজ তথা গোটা দুনিয়ার সকল মোমিন- মেমিনাতের কল্যাণের জন্য।
• দোয়া করুন- দুনিয়াতে সকল ধর্ম বর্ণ ও গোত্রের মানুষের সাথে যেনো মিলে মিশে থাকতে পারি। তাদের উপকার করতে না পারলেও যেনো ক্ষতি না করি।
•স্বাস্থ্যের দিকে নজর রাখুন, ইফতারে ভাজা – পোড়া এড়িয়ে চলুন।
•খেজুর দিয়ে ইফতার করুন। এটা সুন্নাত এবং স্বাস্হ্যের জন্যও উপকারী।
•ইফতারের সময় হওয়ার সাথে সাথে ইফতার করুন। (তারাতারি ইফতার করা সুন্নাত)
•সামর্থ থাকলে প্রতিদিন কমপক্ষে একজন রোজাদারকে ইফতার করানোর চেষ্টা করুন।
•সেহরীর করার পূর্বে তাহজ্জুদ নামাজ আদায় করার চেষ্টা করবেন।
•ফজরের নামাজ জামাতে পড়বেন। নামাজের আগে ঘুমাবেন না। তাহলে নামাজ মিস হবার আশংকা থাকে।
•সকল পাপাচার মুক্ত সমাজ গড়তে ঐক্য গড়ে তুলুন।
•অন্যায়, অশ্লীলতা বন্ধ করতে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করুন।
•দিনের বেলা হোটেল রেস্তোরা বন্ধ রাখুন।
•অশ্লীল চলচিত্র,ছিনেমা,ছবি, টেলিভিশন বন্ধ রাখুন।
•পরিপূর্ণ সুন্নাহ অনুসরন করুন।
•ইবাদত – বান্দেগীর অভ্যাস গড়ে তুলুন।
•সামর্থ্য অনুযায়ী অধিক দান করুন।
•সঠিক ভাবে জাকাত- ফিতরাহ আদায় করুন।
আবার সবাইকে রমজানের শুভচ্ছো। আল্লাহর কাছে দোয়া করি – তিনি যেন আমাদের রমজানের সবগুলো রোজা সুস্থতার সাথে রাখার তৌফিক দান করেন।কর্মসূচী সমূহ বাস্তবায়ন করার তৌফিক দান করেন। আমিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *