আজ বুধবার,১৯শে জুন, ২০১৮ ইং, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৫ই শাওয়াল, ১৪৩৯ হিজরী
>> মুহাম্মদ খালেদ সাইফুল্লাহ’এর কবিতা “ঈদ”  >> ওরা আমাকে অন্যায়ভাবে আক্রমণ করছে: মেসি >> ‘ঈদগাহে জায়নামাজ ও ছাতা ছাড়া অন্য কিছু এলাও না’ >> আ’লীগ কোনো ভাড়াটিয়াকে নমিনেশন দেবে না: তোফায়েল >> ভল্ট থেকে ৭ বস্তা টাকা বের করে নেয়ার সময় সোনালী ব্যাংকের ২ কর্মচারী আটক >> ঈদ যাত্রায় পর্যাপ্ত নিরাপত্তা দেয়া হবে : আইজিপি >> তিতাস এর অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন অভিযান >> ‘শেয়ারবাজারসহ বিভিন্ন বিষয় সতর্কতার সঙ্গে হ্যান্ডেল করতে হবে আওয়ামী লীগকে’ >> জোয়ারের পানিতে আগ্রাবাদসহ চট্টগ্রাম নগরীর অনেক এলাকায় সম্পদের ব্যাপক ক্ষতি >> স্মৃতিসৌধ ও বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে নতুন ১৮ বিচারপতির শ্রদ্ধা     

৩ গুণ অন্ধত্ব ‘বাড়বে’ আগামী চার দশকে

আগস্ট ৫, ২০১৭,৫:৪৫ অপরাহ্ণ

 
Spread the love

লাইফস্টাইল ডেস্ক : আগামী চার দশকে বিশ্বে অন্ধ মানুষের সংখ্যা বেড়ে তিনগুণ হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন গবেষকরা।
স্বাস্থ্য বিষয়ক জার্নাল ল্যানসেট গ্লোবাল হেলথে প্রকাশিত এক নিবন্ধে তারা বলছেন, গবেষণায় বিনিয়োগ বাড়িয়ে চোখের চিকিৎসার উন্নতি ঘটাতে না পারলে অন্ধ মানুষের সংখ্যা এখনকার ৩ কোটি ৬০ লাখ থেকে বেড়ে ২০৫০ সাল নাগাদ সাড়ে ১১ কোটিতে গিয়ে দাঁড়াতে পারে।
বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বয়স্ক মানুষের সংখ্যা বাড়তে থাকাই অন্ধের সংখ্যা বাড়ার পেছনে বড় কারণ।
অন্ধত্বের হার ও চোখের সমস্যা সবচেয়ে বেশি দক্ষিণ এশিয়া ও সাব সাহারান আফ্রিকায়। বিশ্বের মোট জনসংখ্যার অনুপাতে চোখের জটিলতায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা কমে এলেও জনসংখ্যা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে প্রবীণদের সংখ্যা বাড়ায় সমস্যার ব্যাপকতা বাড়ছে।
আগামীতে দৃষ্টি প্রতিবন্ধিতায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা আরও বাড়বে বলে গবেষকদের আশঙ্কা।
অন্ধত্বের শিকার
দক্ষিণ এশিয়ায় এক কোটি ১৭ লাখ মানুষ
পূর্ব এশিয়ার ৬২ লাখ মানুষ
দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার ৩৫ লাখ মানুষ
সাব-সাহারান আফ্রিকার মোট জনসংখ্যার ৪ শতাংশের বেশি মানুষ
পশ্চিম ইউরোপের মোট জনসংখ্যার প্রায় শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ মানুষ
ল্যানসেট গ্লোবালে প্রকাশিত নিবন্ধে বলা হয়, বিশ্বের ১৮৮টি দেশের তথ্য বিশ্লেষণ করে ২০ কোটির বেশি মানুষের মধ্যে মাঝারি থেকে গুরুতর মাত্রায় চোখের সমস্যা পেয়েছেন গবেষকরা। ২০৫০ সালের মধ্যে এ ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা ৫৫ কোটি ছাড়িয়ে যাবে বলে তাদের আশঙ্কা।
নিবন্ধের প্রধান লেখক অ্যাংলিয়া রাসকিন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রুপার্ট বোর্নি বলেন, “দৃষ্টি সামান্য ঝাপসা হয়ে এলেও একজন মানুষের জীবনে যথেষ্ট বিরূপ প্রভাব পড়তে পারে।
“উদাহরণ হিসেবে বলা যায়, বিষয়টি তাদের স্বাধীনতা সীমিত করে দিতে পারে …  তাদের অনেকেই আর চোখের সমস্যার কারণে গাড়ি চালাতে পারেন না।”
আগামী দিনের ঝুঁকি কমাতে চোখে কৃত্রিম লেন্স বসানোর মতো চিকিৎসায় বিনিয়োগ বাড়ানোর পাশাপাশি যথাযথ চশমার সহজপ্রাপ্যতা নিশ্চিত করার ওপর জোর দিতে বলছেন গবেষকরা।
বিশ্বের ৩০টিরও বেশি দেশে অন্ধত্ব প্রতিরোধে কাজ করা দাতব্য সংস্থা সাইটসেভারস বলছে, চোখের লেন্স ঝাপসা হয়ে যাওয়ায় তা প্রতিস্থাপনের প্রয়োজন হবে- এমন অবস্থা দিন দিন বাড়ছে।
এ সংস্থার সদস্য ইমরান খান বিবিসিকে বলেন, “বয়স্ক মানুষ ও দীর্ঘদিন রোগে ভোগা মানুষের সংখ্যা বাড়ায় দরিদ্র দেশগুলোতে অন্ধত্বের সমস্যাও বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে।”
চোখের সমস্যায় টেকসই সেবা দিতে উন্নয়নশীল দেশগুলোতে আরও শল্যবিদ ও নার্সের পাশাপাশি স্বাস্থ্য খাতে উন্নয়নের কথা বলেন তিনি।

 

Chairman

Md. Riadul Islam (Afzal)
Chairman
www.bdnewstv24.com
 

সর্বশেষ সংবাদ

 

সারাবাংলা

 

 

Site Developed By: Md. Shohag Hossain